মেনু নির্বাচন করুন

চন্দ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয়

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

ঐতিহ্যবাহী চন্দ্রপুর গ্রামটি তিন কিলোমিটার দীর্ঘ, প্রস্থ প্রায় দুই কিলোমিটার। এখানে প্রায় ২০ হাজার লোকের আবাসভূমিতে দুটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, দুটি মাদ্রাসা ও তিনটি বাজার রয়েছে। উচ্চ শিক্ষা গ্রহনের জন্য কোন মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না থাকায় চন্দ্রপুর গ্রামের অধিবাসীগন বহুদিন প্রতিক্ষার পর অনেক চেষ্টা করে মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভিত্তি স্থাপনে অগ্রসর হয়। গ্রামবাসীর প্রানের দাবী পূরনে প্রথমে শুভাকাঙ্খি ও সূধিজন এগিয়ে আসেন। এলাকার বেকার যুবকদের মধ্যে ডুবারপাড়া গ্রামের জনাব আজাহারুল ইসলাম সাহেব, চন্দ্রপুর গ্রামের নূরমোহাম্মদ, শাহজাহান আলী ইব্রাহীম মাওলানাসহ আরো অনেকে, ডুবারপাড়া গ্রামের বৃ-পাথুরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে কর্মরত সিনিয়র শিক্ষক জনাব মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন খান সাহেবের নিকট উপস্থিত হলে তিনি উদ্যোগ গ্রহন করায় শ্যামপুরের জনাব আঃ লতিফ সিনিয়র শিক্ষক হালসা উচ্চ বিদ্যালয়কে এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক জনাব আঃ মোত্তালেব সাহেবসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে প্রথম সভার আয়োজন করেন। সভায় ডুবারপাড়ার মিজানুর রহমান, ছবের আলী প্রাং, প্রসন্ন কুমার ক্ষত্রিয়, চন্দ্রপুরের কালাচাঁন তলাপাত্র, ওমর আলী ধলা, লক্ষীপুরের জুরান বেপারী, নূরুল হাজী, চকআলদত খাঁ গ্রামের হুরমত আলী মৃধা, ইউনুস আলী, জালাল, চন্দ্রপুরের উজির আলী খাঁন সাহেবসহ আরো অনেকে উপস্থিত হন। বিপুল উৎসাহ উদ্দিপনা নিয়ে প্রতিষ্ঠান গড়ার প্রত্যয় ব্যাক্ত করেন। সভায় উজির আলী খাঁন সাহেবের সভাপতিত্ত্বে সভার কাজ সম্পন্ন করা হয়। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক জনাব আঃ মোত্তালেব সাহেবের প্রচেষ্টায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পূর্বপার্শ্বে এলাকাবাসীর অনুদানে একটি ছাপরা ঘর তোলা হয়। উক্ত ছাপরা ঘরে প্রথমে পাঠদানের কাজ শুরু করা পর প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য কার্যক্রম ধিকি-ধিকি করে চলতে থাকে। সুধি জনের পরামর্শে শুরুহয় তহবিল সংগ্রহের কাজ, আসতে থাকে অনুদান ও সহায়তা; এর-ই মাঝে প্রতিষ্ঠান সরকারী অনুমোদনের জন্য আবেদন করা হয়। আবেদন করা মাত্রই প্রতিযোগীতার স্বার্থে পুরুলিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি সামছুল হক মোল্লা পলান সাহেবের চক্ষু শুলের কারণ হয়। তখনি আশা অনেকটা কালো মেঘে ঢাকা পড়ে, শুরু হয় হতাশা আর অপেক্ষার পালা। পূর্ব অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে শিক্ষকরা পূর্ণ উদ্দ্যমে পাঠদান কার্য সম্পন্ন করতে থাকে। বরই পরিতাপের বিষয় থানা নির্বাহী কর্মকর্তা সাহেব সামছুল হক মোল্লা পলানের অনৈতিক আবেদনটি আমলে আনলে কার্যক্রম কিছুটা ব্যহত হয়। এর ফলে পূর্ববর্তী কমিটির সদস্যগন অনেকটা ঝিমিয়ে পড়লে, লক্ষীপুরের জনাব সোহরাব হোসেন খান জোতি, চন্দ্রপুরের প্রবীন মুরবিব দানেছ আলী খাঁন ও ইউপি সদস্য আবুল হোসেনের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আবারো জ্বলে আশার আলো। থানা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়ের আপত্তি উপেক্ষা করে পূনরায় বিবেচনার জন্য মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিকট আবেদন করলে, তিনি সর-জমিনে পরিদর্শন করতে আসেন, পরিদর্শনে বিবদমান অবস্থা ইতিবাচক হওয়ায় তিনি নারী শিক্ষার প্রসারে প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয়তা ব্যাক্ত করেন। কিন্তু যথাযথ কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি আকর্ষিত না হওয়ায় আবারো আধার নেমে আসে প্রতিষ্ঠানের আকাশে, জমতে শুরু হয় আকষ্যিক মেঘ, তবুও প্রতিক্ষার প্রহর গুনে চলে কয়েকজন পথ হারা নাবিক। কিছুটা পথ চলতে চলতে জনাব মোয়াজ্জেম হোসেন পূনরায় ফিরে যান তার নিজ গন্তব্যে।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মোঃ আজাহারম্নল ইসলাম 0 chs.bd2@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মোঃ হাফিজুর রহমান 0 chs.bd2@gmail.com
মোঃ সামছুর রহমান 0 chs.bd2@gmail.com
মুহাঃ ইব্রাহীম হোসেন 0 chs.bd2@gmail.com
মোঃ রজব আলী 0 chs.bd2@gmail.com

৫৪৪ জন

 

৯৯%

কমিটির মোট সদস্য সংখ্যা-১১ জন, মেয়াদ-০৯/৩/২০১২খ্রিঃ

সাল

৬ষ্ঠ শ্রেণী

৭ম শ্রেণী

৮ম শ্রেণী

৯ম শ্রেণী

১০ম শ্রেণী

 

মোট ছাত্র/ছাত্রী

উর্ত্তিণ

মোট ছাত্র/ছাত্রী

উর্ত্তিণ

মোট

ছাত্র/ছাত্রী

উর্ত্তিণ

মোট

ছাত্র/ ছাত্রী

উর্ত্তিণ

মোট

ছাত্র/ছাত্রী

উর্ত্তিণ

২০০৭

১২০

১১৯

১৩০

১২৮

১২৫

১২২

৮০

৭৮

৬০

৫৫

২০০৮

১১৮

১১৬

১২০

১১৭

১০৫

১০৩

৭৭

৭৫

৬৫

৫৬

২০০৯

১১০

১০৮

১১০

১০৮

১০০

৯৯

৭৫

৭০

৭০

৬১

২০১০

১২৫

১২৩

১৩০

১২৫

৮৪

৮২

৮৫

৮২

৫৫

৪৫

২০১১

১২০

১১৫

১২৫

১২০

৮৪

৮৪

৭৮

৭৮

৭৮

৭৭

২০১১ সালের জে,এস,সি পরীক্ষায় ১জন ছাত্রী বৃত্তি লাভ করে।

২০০৮ সালে ১জন এবং ২০১০ সালের এস,এস,সি পরীক্ষায় ১ জন ছাত্র অ+ লাভ করে

প্রতিষ্ঠানের বর্তমান শ্রেণীতে নতুন শাখা খোলার পরিকল্পনা আছে, এছাড়াও কারিগরি শিক্ষার প্রনারে ইতোপূর্বে কারিগরি অধিদপ্তরে শাখা খোলার নিমমেত্ত আবেদন করা হয়েছে। বিদ্যামান  প্রতিষ্ঠানে বিজ্ঞান ল্যাবসহ কম্পিউটার ল্যাব খোলার প্রচেষ্টা অব্যহত আছে। বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় যুগোপযোগি শিক্ষা প্রসারে প্রতিষ্ঠান সংশিস্নষ্টরা অগ্রনী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। বিশেষ করে অবহেলিত সমাজকে যুগের চাহিদা অনুযায়ী চাহিদা পূরনের জন্য সকলের শিক্ষার বাসত্মব মানদন্ডে দাড় করানো আমাদের অঙ্গিকার।

চন্দ্রপুর উচ্চ বিদ্যালয়,ডাকঘর-পুরুলিয়া,উপজেলা-গুরুদাসপুর,জেলা-নাটোর

chs.bd2@gmail.com



Share with :

Facebook Twitter